কিভাবে অনলাইন এ ই-টিন সার্টিফিকেট তৈরী করবেন

E-TIN(টি.আই.এন
E-Tin বলতে কি বুঝি?

TIN (টি.আই.এন) বলিতে Tax payers Identification number বা করদাতা সনাক্তকরণ নম্বর

বুঝায়। টি.আই.এন ১২ অংকের একটি  কম্পিউটার জেনারেট নম্বর।



কখন ট্যাক্স দিতে হবে?

কারো আয় যদি ২.৫০ (দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) এর বেশি হয় তাহলে ট্যাক্স দিতে হবে।



কি কি কাজে E-Tin (ই-টিন) সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়?

যে কোন কাজ করতে গেলেই এখন টিন সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক। ব্যাংকিং কার্যক্রম থেকে শুরু করে সবক্ষেত্রেই এখন E-TIN (টিন) সার্টিফিকেট লাগে। যেমনঃ কোম্পানী রেজিস্ট্রেশন, ঠিকাদারী লাইসেন্স, ড্রাগ লাইসেন্স সহ ইত্যাদি তে।



রাকিব টেক এর পক্ষ থেকে আজ আমরা শিখাবো কিভাবে খুব সহজে কোন অতিরিক্ত টাকা খরচ না করে খুব সহজে আপনি নিজের E-Tin (টিন) সার্টিফিকেট ঘরে বসে নিজেই তৈরি করতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করি।

প্রথমে যে কোন একটি ব্রাউজার ওপেন করবো। আমি ক্রোমো ব্রাউজার ওপেন করছি। তাররপর আয়কর নিবন্ধনের যে লিংক এ যেতে ক্লিক করুন এই ওয়েব সাইড এ প্রবেশ করতে হবে। 

প্রবেশ করার পরে আমাদের Registration সম্পন্ন করতে হবে।

Registration এ ক্লিক করলে একটি ফর্ম খুলবে। এই ফর্মে User ID তে একটি User ID দিতে হবে। এখানে আমি User ID হিসাবে অনারের ফোন নাম্বারটি User ID হিসাবে ব্যবহার করছি।

Password অপশনে আট সংখ্যার Password দিতে হবে।



Security Question অপশনে অনেকগুলি অপশন দেওয়া থাকবে সেখান থেকে আপনার মন মত অপশন সিলেক্ট করে Security Answer দিতে হবে। 


Country অপশনে অবশ্যই বাংলাদেশ সিলেক্ট থাকতে হবে এবং মোবাইল নম্বর দিতে হবে।

তারপর অনারের যদি E-mail থাকে তাহেলে E-mail টি দিতে হবে।

তারপর Verification letters এ কেপচার কোর্ডটি লিখে Register এ ক্লিক করতে হবে।


তারপর আপনার মোবাইলে NBR থেকে একটি এক্টিভিশন কোর্ড পাঠাবে সেই কোর্ডটি দিয়ে এক্টিভ বাটোনে ক্লিক করতে হবে। তাহলেই রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হয়ে যাবে।

তারপর অবশ্যই লগ ইন বাটনে ক্লিক করে লগ ইন কার নিতে হবে।



এখানে ইউজার আইডি হিসাবে আমরা যে অনারের মোবাইল নম্বর ইউজ করেছিলাম সেই মোবাইল নম্বর টি দিয়ে দিব এবং তার সাথে পাসওয়ার্ডটিও দিয়ে দিব এবং লগ ইন করবো।



লগ ইন হয়ে গেলে এখন আমাদের রেজিট্রেশন ফ্রমটি আনতে হবে। 
সে জন্য আমরা নিচে থেকে টিন অ্যাপ্লিকেশনে ক্লিক করতে পারি বা বাম পাশ থেকে টিন অ্যাপ্লিকেশনে ক্লিক করে অ্যাপ্লিকেশন ফর্মটি আনতে হবে। এই ফর্ম পুরোনের সময় আপনাকে অবশ্যই স্টার দেওয়া ঘরগুলি পূরন করতে হবে।

এখানে করদাতার ধরনে (a) তে Individual>Bangladeshi সিলেক্ট করতে হবে। (b) তে Individual>Bangladeshi>Having NID সিলেক্ট করতে হবে।

রেজিস্ট্রেশন টাইপ/ধরন এ নিউ রেজিস্ট্রেশন সিলেক্ট করতে হবে।

Main Source of Income/ আয়ের প্রধান উৎসে আপনি যে দরনের ব্যবসা করবেন তা সিলেক্ট করবেন। আমি এখানে ব্যবসার ধরন Business এ কাজ করবো তাই এখানে আমি তাতে ক্লিক করবো।



Business এ ক্লিক করার পর আরো দুটি ম্যানু এ্যাড হবে। এখানে Location of Main source of Income এ আমাদের লোকেশন দেখিয়ে দিতে হবে। তারপর Go TO Next এ ক্লিক করতে হবে। এবার আপনি রেজিস্ট্রেশনের Preview দেখতে পাবেন। কোন ভুল থাকলে ঠিক করে নিন।




এবার Submit এ ক্লিক করুন। হয়ে গেল আপনার E-Tin.







কিভাবে BIN সার্টিফিকেট অনলাইনে খুব সহজে কারো কোন সাহায্য ছাড়াই করে ফেলতে পারবেন তার Tips ও আমরা খুব শীঘ্রই আপনাদেরকে জানিয়ে দিবো। সাথেই থাকুন www.rakibtech.com এর।